Wednesday , January 17 2018
Home / সারাবাংলা / রাব্বানির ঢাকা সফর নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে তোলপাড়

রাব্বানির ঢাকা সফর নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে তোলপাড়

আলিফ হোসেন, তানোর
রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী, তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুন্ডুমালা পৌর মেয়র জননন্দিত রাজনৈতিক নেতা সবার প্রিয় (রাব্বানি ভাই) গোলাম রাব্বানিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ডেকে পাঠানো হয়েছে বলে গুঞ্জন বইছে। আর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ডাকে সাড়া দিয়ে ১০ জানুয়ারী বুধবার দিবাগত রাতে গোলাম রাব্বানি ঢাকার উদেশ্যে রওয়ানা হয়েছেন বলে তার ঘনিষ্ঠরা নিশ্চিত করেছে। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ডাকে গোলাম রাব্বানির ঢাকা যাবার খবর ছড়িয়ে পড়লে তার অনুগত নেতাকর্মী ও আওয়ামী লীগের তৃণমূলে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। অন্যদিকে রাব্বানির ঢাকা সফর নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। দলীয় মনোনয়নের বিষয়ে তাকে জরুরী ভাবে ঢাকায় তলব করা হয়েছে বলে দাবি তার অনুসারিদের। আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড ইতমধ্যে তাকে সবুজ সঙ্কেত দিয়ে মাঠে জনমত গড়ে তোলার নির্দেশনা দিয়েছে। এছাড়াও এবার মূখ দেখে নয় তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিত্বে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে বলেও তাকে জানানো হয়েছে বলে রাব্বানির ঘনিষ্ঠরা নিশ্চিত করেছে। এদিকে রাব্বানি কি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাচ্ছেন, না কি ? এমপির সঙ্গে সমঝোতায় বসানো হচ্ছে ? ইত্যাদি বিষয় নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনার ঝড় উঠেছে।
জানা গেছে, চলতি বছরের ১০ জানুয়ারী বুধবার বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে গোলাম রাব্বানি মুন্ডুমালা পশুহাটে আলোচনা সভা আহবান করেন। কিšত্ত আলোচনা সভায় প্রায় কুড়ি হাজার মানুষের উপস্থিতি জনসভায় রুপ নিয়ে জনসুমুদ্রে পরিণত হয়ে উঠে। রাব্বানির শুধু মাত্র মুঠোফোনের ডাকে সাড়া দিয়ে এমন জনসূমুদ্রের খবর ছড়িয়ে পড়লে রাব্বানিবিরোধী শিবিরের চোখেমূখে চরম হতাশার চিত্র ফুটে উঠেছে। এদিকে গোলাম রাব্বানির ওই জনসভার খবর বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ও অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচার হলে তা আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকদের নজর কাড়ে এবং তারাও তাকে নিয়ে উচ্চসিত হয়ে উঠেন। আর ওই খবর প্রচারের পর পরই প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে গোলাম রাব্বানির ডাক আসে বলে তার ঘনিষ্ঠরা নিশ্চিত করেছে। আবারো রাজনৈতিক অঙ্গনে প্রধান আলোচনায় ফিরে এসেছে গোলাম রাব্বানির নাম।
বরেন্দ্র অঞ্চলে প্রায় শত বছরের রাজনৈতিক ঐতিহ্যবাহী (প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী) মাহাম পরিবার যে এখানো এই অঞ্চলের রাজনৈতিক অঙ্গনে জনপ্রিয়তার শীর্ষে ও তৃণমূলের রাজনৈতিক অঙ্গনে একচ্ছত্র আধিপত্য রয়েছে গোলাম রাব্বানির আহবানে প্রায় কুড়ি হাজার মানুষের উপস্থিতি সেটা আবারো প্রমাণ করেছে। এক জন রাজনৈতিক নেতা কতোটা কর্মী-জনবান্ধব ও রাজনৈতিক দূরদর্শীতা সম্পন্ন হলে তার ডাকে সাধারণ এভাবে সাড়া দেয় রাব্বানি এই জনসূমুদ্রের মাধ্যমে আবারো তা প্রমাণ করেছেন। এছাড়াও মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ভিড়ে অন্যদের থেকে তিনি অনেকটা এগিয়ে গেছেন। মুন্ডুমালার ইতিহাসে স্মরণকালের সর্ববৃহত এই জনসুমুদ্রের মাধ্যমে তিনি প্রমাণ করেছেন আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে তৃণমূলে এখানো রাব্বানির আকাশচুম্বি জনপ্রিয়তা রয়েছে এবং তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিত্বে সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়া হলে তার মনোনয়ন পাওয়া অনেকটা নিশ্চিত হয়েছে। কারণ রাব্বানিবিরোধী শিবির তার ডাকা সভায় যেতে নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষকে নানা ভাবে ভয়ভীতি ও প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেও গণজোয়ার ঠেকাতে চরম ভাবে ব্যর্থ হয়েছে। ফলে গণমানুষের নেতা হিসেবে গোলাম রাব্বানি আবারো প্রমাণ দিয়েছেন। এদিন বিকেল তিনটায় আলোচনা সভা আহবান করা হলেও দুপুরের পরপরই মুন্ডুমালা পশুহাট সাধারণ মানুষের উপস্থিতিতে কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে উঠে এমনকি মাঠে জায়গা না হওয়ায় অনেককে আশপাশের বাড়ি ছাদে ও বড় বড় গাছে বসে আলোচনা সভা উপভোগ করতে দেখা গেছে। রাব্বানির জনস্রোতে ভেসে গোলো অনুপ্রবেশকারি হাইব্রিড যারা এতোদিন রাব্বানির কোনো জনপ্রিয়তা নাই বলে লোক-সমাজে অপপ্রচার করে বাহবা নিয়েছেন এই জনস্রোতের কারণে এখন তাদের মূখ লুকানো দায় হয়ে পড়েছে। তবে রাব্বানি সমর্থোক গোষ্ঠির দাবি এটা প্র¯ত্ততি মূলক সভা সবেমাত্র শুরু আগামিতে আরো বড় ধরণের কর্মসূচি রয়েছে। এদিকে রাব্বানির ডাকে সাড়া দিয়ে হাজারো মানুষের উপস্থিতি আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকদের উচ্চসিত করেছে। আর সভা শেষ হবার পরপরই গণভবন থেকে রাব্বানির ডাক এসেছে, সেই ডাকা সাড়া দিয়ে তিনি ঢাকর উদেশ্যে যাত্রা করেছেন।
রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহলের অভিমত, যেখানে একই দিনে রাব্বানি বিরোধী শিবির বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আলোচনা সভা আয়োজন করে লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ ও ব্যাপক-প্রচার-প্রচারণা করেও সভায় লোকসমাগম করতে চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছে সেখানে রাব্বানির শুধুমাত্র মুঠোফোনের আহবানে সাড়া দিয়ে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতি তাঁর জনপ্রিয়তার প্রমাণ দিয়েছে। এছাড়াও কোনো এই অঞ্চলের সাধারণ মানুষ রাব্বানিকে তাদের (লেনসেন ম্যান্ডেলা) ম্যান্ডেলা বলেন সেটিও প্রমাণ হয়েছে। এদিকে রাব্বানিকে ঘিরে সাধারণ মানুষের এই জনস্রোত উপজেলার রাজনৈতিক অঙ্গনে আবারো আলোচনার সূত্র করেছে। আওয়ামী লীগ বিরোধীরাও রাব্বানির এমন জনস্রোত থেকে বিস্ময়ে হতবাক হয়ে তাকে নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করছে।
সূত্র জানায়, মুন্ডুমালা পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমানের সঞ্চালনে ও এমপি মনোনয়ন প্রত্যাশী গোলাম রাব্বানির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য ও (সাবেক) গোদাগাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন-রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বদরুজ্জামান রবু মিয়া ও এ্যাডঃ মকবুল হোসেন খাঁ, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও গোদাগাড়ী পৌরসভার মেয়র মনিরুল ইসলাম বাবু, জেলা কৃষক লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুল ওহাব জেমস, ইউপি চেয়ারম্যান আকতারুজ্জামান, কাউন্সিলর নাহিদ হাসান, হাবিবুর রহমান প্রমূখ। এদের মধ্যে সাত জনই সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। তারা সাত প্রার্থী (মনোনয়ন প্রত্যাশী) ঐক্যবদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের অনুষ্ঠানে নৌকার পক্ষে ভোট চেয়েছেন।

Check Also

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল শুরু

অনলাইন ডেস্ক ঘন কুয়াশার কারণে পৌনে সাত ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *