Wednesday , January 17 2018
Home / মাদারীপুর সংবাদ / মাদারীপুরে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

মাদারীপুরে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

মাদারীপুর প্রতিনিধি: শিবচরে কিশোর মেহেদী হাসানকে নির্যাতনকারী কামরুল বেপারী অবশেষে গ্রেফতার হয়েছে। শিবচর থানায় ৪ জনকে আসামী করে শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন মেহেদীর বাবা মনোয়ার খাঁ।  কামরুল বেপারীকে আদালতে হাজির করা হলে মাদারীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আফরোজা বেগম তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এদিকে পরিবারে আতঙ্ক না কাটায় নির্যাতিত মেহেদীকে হাসপাতালে পুলিশ প্রহরায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। নির্যাতনে গুরুতর আহত মেহেদী আশঙ্কামুক্ত হলেও ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ দিয়েছেন।

আহত মেহেদীর মা পারুল বেগম বলেন, “ডাক্তার আমার ছেলেকে উন্নত চিকিৎসার কথা বলেছেন। কিন্তু আমরা খুব গরীব উন্নত চিকিৎসার টাকা কোথায় পাব? মেহেদী এখনো ভালোভাবে কথা বলতে পারে না। ওর সারা শরীর ব্যথা। এদিকে আমরা প্রভাবশালীদের ভয়ে আতঙ্কে আছি।”

হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. সাঈদ আহমেদ বলেন, ‘মেহেদীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তখন তার সারা গায়ে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। সে কিছুটা শঙ্কামুক্ত হলেও এখন তার ডিজিটাল এক্স-রে এবং উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন।’

উল্লেখ্য, শিবচরের কাদিরপুর ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার বিকে নগর পশ্চিম কাজীকান্দি গ্রামের মনোয়ার খানের ছেলে মেহেদী হাসান ডিস লাইনের কর্মী। সে বিভিন্ন গ্রামে ডিস লাইনের সংযোগ দিতো এবং মেরামতের কাজ করতো। মেহেদী হাসান ঈদের আগে কামরুল বেপারীর ঘরে ডিস লাইনের কাজ করে। এরপর কামরুল বেপারীর দুইটি মোবাইল সেট হারিয়ে যায়। মোবাইল চুরির ঘটনায় মেহেদী হাসানকে সন্দেহ করেন কামরুল বেপারী। এরই জের ধরে শনিবার দুপুর ১২টার দিকে কামরুল বেপারী ডিস লাইনের কাজ করার কথা বলে মেহেদী হাসানকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে তাকে মোবাইল চুরির অভিযোগে মারধর করা হয়। এরপর তাকে একটি বদ্ধ ঘরে হাত-পায়ে ও গলায় লোহার শিকল বেঁধে আটকে রেখে দুইদিন ধরে শারীরিক নির্যতন চালাতে থাকে। স্থানীয়ভাবে খবর পেয়ে শিবচর থানা পুলিশ মেহেদীকে উদ্ধার করে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

Check Also

ইউপি চেয়ারম্যান বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ২

শিবচর প্রতিনিধি: শিবচরের দক্ষিণ বহেরাতলা ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় ঢাকা থেকে ২ ডাকাতকে গ্রেফতার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *